#ঈমান_সিরিজ_প্রিভিউ_প্রতিযোগিতা

বিছমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।

ছোটরা গল্পপ্রিয়। সবারই শৈশব কাটে গল্প শুনে ও গল্প পড়ে। তবে সাধারণতই এই গল্প জুড়ে থাকে দৈত্য-দানব, রাজা-রানি, জাদুর বুড়ি- রুপকথার আরো কত কি। শিশুমনে কত চিন্তার উদ্রেকই না হয়! চিন্তাগুলো ঘিরে থাকে এসব অর্থহীন রুপকথার গল্পের চরিত্রে। 

যেমন আমরা যখন ছোটবেলায় সুপারম্যান নিয়ে পড়তাম তখন ভাবতাম, "আমি যদি সুপারম্যান হতাম?"। যখন পড়তাম হ্যারি পটারের গল্প তখন ভাবতাম, "ইস! আমিও যদি জাদু করতে পারতাম"। আমাদের চিন্তা আটকে থাকতো এই কাল্পনিক সুপারম্যান, দৈত্য-দানব, হ্যারি পটারদের মাঝে।

এই অর্থহীন গল্পগুলো থেকে কোনো সুশিক্ষা পাওয়া যায় না ঠিকই, হয়ত কিছু বিনোদন পাওয়া যায়। কিন্তু এই বিনোদনের আড়ালে থাকে ইমান ধ্বংসাত্মক, ভ্রান্ত শিক্ষা। যা ধীরে ধীরে চারা বপন করে হৃদয়ে। এই ভ্রান্তির চারা থেকে একসময় ভ্রান্তির ফল হয়। যে ফল তিক্ত এবং কটু!

কিন্তু কেমন হয়? যদি ছোট থেকেই সোনামণিদের জানানো হয়, আমাদের রব কে? কে এই মহাবিশ্বের প্রতিপালক? কার হাতে জীবন-মৃত্যু? কুরআন কার বাণী? নবী-রাসূল কারা? ফেরেশতারা কারা? আখিরাতে কি হবে? তাকদ্বীর কী? ইমান কি? 

অর্থহীন কাল্পনিক গল্পের জায়গায় যদি থাকে গল্পে গল্পে তাওহীদের শিক্ষা? যা নিয়ে এই ক্ষণস্থায়ী দুনিয়া ছেড়ে যেতে হবে তা নিয়েই যদি কাটে সোনামণিদের শৈশব? যদি শৈশব থেকেই তারা বেড়ে উঠতে পারে দ্বীন ইসলামের শিক্ষা নিয়ে? চারাগুলো যদি হয় ইমান ও আল্লাহভীরুতা বা তাক্বওয়ার? -তাহলে চিন্তা করুন তার ফল কতই না সুমিষ্ট হবে!

◽কতইনা সুন্দর করে বলেছিলেন ইমাম ইবন আল কাইয়্যিম (রাহিমাহুল্লাহ),

"সবার হৃদয়ের স্বাভাবিক অবস্থাই হচ্ছে উর্বর, এতে যা বপন করা হয় তাই সহজে বেড়ে উঠে। যদি ইমান এবং আল্লাহভীরুতা বা তাক্বওয়ার চারা এতে রোপণ করা হয়, তবে তা এমন সুমিষ্ট ফল দান করবে যা হবে চিরন্তন। আর যদি অজ্ঞতা এবং কামনা-বাসনার চারা রোপণ করা হয় তাহলে তার ফল হবে তিক্ত এবং কটু" [আল-ফাওয়াইদ,পৃঃ৭০]

সোনামণিদের মাঝে গল্পে গল্পে সেই সত্যের চারা রোপণ করার জন্যই "সমর্পণ টিম" নিয়ে আসছে কুরআন, হাদীস কিংবা তাফসীর গ্রন্থের আলোকে "ছোটদের ইমান সিরিজ"। যেখানে থাকছে ইমানের মৌলিক বিষয় নিয়ে ছোট ছোট গল্পে সাজানো মোট ছয়টি বই। 

◾চলুন জেনে আসি বইগুলো সম্পর্কে,

▫ বইঃ ছোটদের ইমান সিরিজ


▫ লেখকঃ সমর্পন টিম 



▫ শারঈ সম্পাদকঃ শাইখ আবদুল হাই মুহাম্মাদ সাইফুল্লাহ (হাফিঃ)

▫ প্রকাশনীঃ সমর্পন প্রকাশন

▫ মোট বইঃ ৬ টি [ ১.আল্লাহ আমার রব ২. ফেরেশতারা নূরের তৈরি ৩.আসমান থেকে এলো কিতাব ৪.দুনিয়ার বুকে নবি রাসূল ৫.বিচার হবে আখিরাতে ৬.তাকদীর আল্লাহর কাছে ]

▫ প্রতি বইয়ের পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ ৩৬ পৃষ্ঠা

▫ ছাপাঃ ৪ কালার (আর্টপেপার)

▫ বইয়ের সাইজঃ ৮ X ৯ ইঞ্চি

🔸"আল্লাহ আমার রব" বইয়ে-

'কে তোমার রব?' গল্পে সোনামণিরা জানতে পারবে, মানুষের হাতে তৈরি মূর্তি কখনো কারো রব হতে পারে না, তেমন হতে পারে না চন্দ্র-সূর্যও কারো রব। বরং রবতো তিনি যিনি হলেন চন্দ্র-সূর্যের সৃষ্টিকর্তা, যিনি এই মহাবিশ্বের প্রতিপালক। আর তিনিই হলেন আমাদের সকলের সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহ সুবাহানওয়াতা'য়ালা।

'আল্লাহ আমার রব' গল্পে সোনামণিরা জানতে পারবে, এক কিশোরের দু'য়া কবুলের কথা। জানতে পারবে তার ছিল আল্লাহর প্রতি অগাধ বিশ্বাস, যে বিশ্বাস অটল ছিল মৃত্যুর মুখেও। আরো জানতে পারবে, আল্লাহর হুকুম ছাড়া এই দুনিয়ায় কিছুই হয় না। আল্লাহর হুকুমেই আমরা মারা যাই। আল্লাহর হুকুমেই আমরা বেঁচে থাকি। জীবন-মৃত্যু সবই আল্লাহর হাতে৷ তিনিই সবকিছুর মালিক। চন্দ্র-সূর্য, গাছ-পালা, নদী-নালা, জ্বীন-ইনসান সবকিছুর মালিক তিনি। আমরা হলাম তার দাস তাই আমরা তার হুকুম মানতে বাধ্য।

'অচেনা অতিথি' গল্পে সোনামণিরা জানতে পারবে, কিভাবে ফেরেশতা জিবরীল (আঃ) মানুষের রুপে এসে দ্বীন শিখিয়ে গেলেন। কিভাবে তিনি ইসলাম সম্পর্কে ও ইমানের ছয়টি মৌলিক বিষয় সম্পর্কে জানালেন! যেগুলো বিশ্বাস করা ব্যাতিত মুসলিম হওয়া যায় না!

🔸"আসমান থেকে এলো কিতাব" বইয়ে- 

'জিবরীল এলেন ওহি নিয়ে' গল্পে সোনামণিরা জানতে পারবে, কিভাবে মুহাম্মদ (ﷺ) এর উপর কুরআন নাজিল হলো। কিভাবে মুহাম্মদ (ﷺ) কে জিবরীল (আঃ) কুরআন শিক্ষা দিলেন। কিভাবে মুহাম্মদ (ﷺ) তার নবুয়াতের কথা জানতে পারলেন -সেই গল্প। 

'শুনলে কুরআন জুড়ায় প্রাণ' গল্পে সোনামণিরা জানতে পারবে, যে উমার (রাযিঃ) মুহাম্মদ (ﷺ) কে মারার জন্য খোলা তলোয়ার হাতে নিয়ে বেরিয়েছিল তিনি কিভাবে সূরা ত্ব-হা পড়ে বদলে গেলেন। কিভাবে কুরআন তার হৃদয় জুড়িয়ে দিল। কিভাবে তিনি ইসলাম কবুল করলেন -সেই গল্প।

 এরকম সুন্দর সুন্দর গল্পে সাজানো "ছোটদের ইমান সিরিজ" যা নিয়ে আসছে "সমর্পন প্রকাশনী"। বইগুলোর প্রচ্ছদ এবং পাতা খুবই দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয়। বইগুলো দেখতে খুবই চমৎকার। সুতরাং বলাই যায় ছোট সোনামণিরা বইগুলো পেয়ে খুব আগ্রহের সাথেই পড়বে। 

চলুননা ছোট সোনামণিদের উর্বর হৃদয়ে বপন করি ইমান এবং তাক্বওয়ার চারা.................