হ্যালো বন্ধুরা বর্তমান ইন্টারনেট আমাদের জীবনের একটি অবিস্দিদ্দ অংশ হয়ে দাড়িয়েছে ।  শুনে অবাক হবেন যে বর্তমান পৃথিবীর প্রায় ৫০% মানুষই এখন ইন্টারনেট ব্যাবহর করেন এবং এই সংক্ষা দিন দিন বেড়েই চলেছে  আজকে আমরা আলোচনা করতে চলেছি   ইন্টারনেটের অন্ধকার জগত বা ডিপ & ডার্ক  ওয়েব সম্পর্কে চলুন শুরুকরি…………………


  • তো ইন্টারনেট কে ৩ সেকসনে ভাগ হয়েছে:

  • সার্ফেস ওয়েব
  • ডিপ ওয়েব
  • ডার্ক ওয়েব 


Dark web, deep web
Dark web, deep web


খন সার্ফেস ওয়েব তো আমরা সবাই চিনি কিংবা আপনি যদি না চিনে থাকেন তাহলে আমি চিনিয়ে দিচ্ছি। সার্ফেস ওয়েব হলো সেই ওয়েব যা আজ পর্যন্ত দুনিয়ার সকল সাধারন ইন্টারনেট ব্যাবহারকারী ব্যাবহার করে আসছে। যা আজ পর্যন্ত আমরা করে এসেছি এখনও করছি বা ভবিষ্যতেও করব সেটাই হলো সার্ফেস ওয়েব এমন কি এই যে ভিডিও আপনি দেখছেন এটাও সার্ফেস ওয়েবের ই একটা অংশ।


তো সার্ফেস ওয়েব হচ্ছে সেই ইন্টারনেট যা দুনিয়ার যে কোন ইউজার যেকোন জায়গা থেকে যে কোন সময় কোন প্রকার ঝমেলা বা স্পেশাল কোন পার্মিশন ছাড়া নরমালি ব্যবহার করতে পারে আর সার্ফেস ওয়েবের সকল ইনফর্মেশন আমারা গুগল, বিং, বা ইয়াহুর মত সার্চ ইন্জিনে দেখতে পাই।

মোট কথা আমরা আমাদের প্রয়জনে অপ্রয়জনে গান শোনার জন্য, ভিডিও দেখার জন্য চ্যাট করার জন্য যে সমস্ত ওয়েব ব্যাবহার করে থাকি তার সবই সার্ফেস ওয়েব। 


কিন্তু আপনি জানেন কী

এই ইন্টারনেট বা সার্ফেস ওয়েব পুরা ইন্টারেটের ৪% আর বাকি ৯৬% হলো ডিপ ওয়েব  একে আমরা একটি আইসবার্গ এর সাথে তুলনা করতে পারি এখানে উপরের সামান্ন দেখতে পাওয়া অংশটা হলো সার্ফেস ওয়েব আর দেখতে না পাওয়া বা নিচের বিশাল অংশটাই হলো ডিপ ওয়েব ।




 এখন আসি ডিপ ওয়েবে।  ডিপ ওয়েব আসলে কী....???


ডিপ ওয়েব হলো সেই সমস্ত ওয়েব যার কোন অস্তিত্ব আপনি গুগল, ইয়াহু, কিংবা বিং এর মত কোন সার্চ ইন্জিনে আপনি খুজে পাবেন না। তার মানে এই নয় যে ডিপ ওয়েব অবৈধ ডিপ ওয়েব সম্পুর্ণ বৈধ এবং নিরাপদ। 


এখন প্রশ্ন করতে পারেন কি হয় ডিপ ওয়েবে ???

ডিপ ওয়েবের কাজ কী তা বুঝতে গেলে আমরা ডিপ ওয়েব কে আমাদের গুগল ড্রাইভ বা ড্রপবক্স এর সাথে তুলনা করতে পারি। ধরুন আপনি আপনার গুগল ড্রাইভে কিছু ফাইল রাখলেন এখন ঐ ফাইল গুলা কি অন্য কেউ এক্সেস নিতে পারবে বা ঐ ফাইল গুলা কি কখনও গুগল সার্চে আসবে..??? না আসেনা....




ডিপ ওয়েবও ঠিক তেমনই বড় বড় কোম্পানি গুলা , বড় বড় ব্যাংক গুলা , এমন কি সকল দেশের গর্ভামেন্ট  তাদের সকল তথ্য , বিভিন্ন গোপন ফাইল, গোপন সকল প্রজেক্ট একটি ওয়েব সাইটে স্টোর করে রাখে এবং এই ওয়েবকেই ডিপ ওয়েব বলাহয়..  একই সাথে এই সাইট গুলা কোন সার্চ ইন্জিন খুজেও পাবে না এবং যে কেউ চাইলেই এই সকল সাইটে প্রবেশ করতে পারবে না।




হ্যা তখনই কেউ ঐ ফাইলের এক্সেস নিতে পারবে বা ঐ সকল সাইটে ঢুকতে পারবে যখন আপনি নিজে বা কোম্পানি গুলো তাদের ঐ সকল সাইটের লিং বা URL  টা তাকে দিবেন (যেমন টা আমাদের গুগল ড্রাইভের ক্ষেত্রে হয়ে থাকে)  এবং একই সাথে পার্মিশন টা দিবেন হতে পারে সেটা মেইল পাসওয়ার্ড কিংবা অন্য কোন অথরিকেশন। মোট কথা আমরা ততক্ষন পর্যন্ত ডিপ ওয়েবে প্রবেশ করতে পারব না যতক্ষন পর্যন্ত আমরা ঐ সাইটের লিং বা URL টি না পবো । 



কারন গুগল বা অন্য সার্চ ইন্জিনে আমরা ঐ সকল সাইটের ছায়াও খুজে পাব না।  তো ডিপ ওয়েব কি তা তো আমরা বুঝে গেছি এ এমন এক ইন্টারনেট যেটা আমাদের সবার কাছে গোপন থাকে। কিন্তু ইন্টারনেটের আরও  একটি অংশ আমাদের কাছে গোপন রয়েছে যা হলো ডার্ক ওয়েব।



আমরা যদি আগের দেখা আইসবার্গের সাথে তুলনা করি তাহলে দেখতে পাব উপরের মাত্র ৪% সার্ফেস ওয়েব এবং বাকি ৯৬% হলো ডিপ ওয়েব । কিন্তু ডার্ক ওয়েব অবস্থিত ডিপ ওয়েবের থেকে আরও গভিরে।










এখন আসি ডার্ক ওয়েব কি এবং এর কাজ কী.???


এক কথায় বলতে গেলে ডার্ক ওয়েব সম্পুর্ণ ইনলিগাল একটি ওয়েব এখান থেকে পৃথিবীর যত প্রকার বে-আইনি কাজ আছে সব করা সম্ভব ড্রাগ্স, আমস্ থেকে শুরু করে খুন খারবি পর্যন্ত করা হয় ডার্ক ওয়েবের সাহায্য তো এর বেশী কোন ইনফর্মেশন আমি দিব না ডার্ক ওয়েব সম্পর্কে । 

এতটুকুই যেনে রাখুন ডার্ক ওয়েব সম্পুর্ণ ইনলিগাল একটি ওয়েব তবে ডার্ক ওযেব সুনতে যতটা সোজা মনে হয় এখানে প্রবেশ করা ততোটাই কঠিন ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করতে হলে সাধারন ওয়েব ব্রউজার দিয়ে প্রবেশ করা যাবে না তার জন্য আমাদের প্রয়জন হবে অনিয়ন রাউটার বা টর ব্রাউজার যা বিভিন্ন প্রকৃয়ার মধ্যদিয়ে আমাদের কে ডার্ক ওয়েবে নিয়ে যাবে।


তো আজকে এই পর্যন্তই আগামীতে ডার্ক এবং ডিপ ওয়েব সম্পর্কে আরও বিস্তারিত লিখব ইনসাআল্লাহ্


                           ++++  ধন্যবাদ  ++++